সকাল ৯:১৫ | শনিবার | ১১ই জুলাই, ২০২০ ইং

নেত্রকোনার হাওরগুলোতে এ বছর মাছের পর্যাপ্ত ডিম না ফোটায় মৎস্য সংকটের আশঙ্কা

এ কে এম আব্দুল্লাহ :

দেশের অন্যতম মৎস্য ভান্ডার হিসেবে খ্যাত নেত্রকোনার হাওরগুলোতে এ বছর মাছের পর্যাপ্ত ডিম না ফোটায় মৎস্য সংকট দেখা দিতে পারে বলে মৎস্যজীবীরা আশংকা করছে।
মৎস্য বিশেষজ্ঞরা জানান, নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিস্তীর্ণ হাওরগুলো হচ্ছে মিঠা পানির মৎস্য আধার। এই হাওরগুলোতে বছরের ৭ /৮ মাস পানি থাকে।

বৈশাখ মাসের শুরুর দিকে বৃষ্টিপাতে নেত্রকোনার হাওর গুলোতে নতুন পানি আসতে শুরু করে। নতুন পানি আসার সাথে সাথে ১৫ বৈশাখ থেকে ৩০ বৈশাখের মধ্যে রুই, কাতলা, বোয়াল, সিং, মাগুর, কৈ, গইন্যা, আইড়, সরপুটি, কাল বাউশ, চিংড়ি, শৌল, গজারসহ প্রায় ৫০ প্রজাতির দেশীয় মা মাছ হাওরে প্রচুর ডিম ছাড়ে। সেই ডিম থেকে কয়েক দিনের মধ্যেই রেণু পোনা ফোটতে শুরু করে। কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্য মাছের ডিম না ফোটায় আষাঢ় মাস শেষ হতে চললেও এই ভরা বর্ষাতেও মাছের পোণা কিংবা তেমন মাছ চোখে পড়ছে না স্থানীয় জেলেদের। তাই মৎস্যজীবীদের কপালে দুঃশ্চিন্তার ভাজ পড়েছে। তারা হাওরাঞ্চলে মাছ সংকটের আশংকা করছে।

একদিকে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঋতু পরিবর্তন ঘটছে, অন্যদিকে হাওরাঞ্চলের ফসল রায় অপরিকল্পিত বেড়ী বাঁধ নির্মাণ, নদ-নদী, খাল-বিল জলাশয়গুলো দিন দিন ভরাটের ফলে মাছের প্রজনন শূন্যতার দিকে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন মৎস্য বিশেষজ্ঞরা।

খালিয়াজুরী উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মজিবুর রহমান জানান, হাওরে প্রায় ৫০ প্রজাতির দেশীয় মাছ রয়েছে। নতুন পানি আসার সাথে সাথে মা মাছেরা প্রচুর ডিম ছাড়ে। সে সব ডিম থেকে প্রায় ১০ মেট্রিক টন রেণু পোনা উৎপাদিত হয়। বিস্তীর্ণ হাওরাঞ্চলে দৌড়াদৌড়ি করতে পারায় মাছগুলো দ্রুত বড় হয়ে উঠে। প্রতি বছর এখানে প্রায় ১২ হাজার মেঃ টন মাছ উৎপাদিত হয়। এখানকার উৎপাদিত মাছ স্থানীয় চাহিদা পূরণ করেও জাতীয় অর্থনীতিতে প্রায় ৩’শ কোটি টাকার অবদান রাখছে। এ উপজেলায় ৮ হাজার নিবন্ধনকৃত জেলে পরিবার ছাড়াও বর্ষাকালে মৎস্য আহরণ করে অন্তত ১৫ হাজার পরিবার সুখে স্বাচ্ছন্দে দিনাতিপাত করে। তিনি আরো বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব তো রয়েছেই, পাশাপাশি এই খালিয়াজুরী উপজেলার বিভিন্ন হাওরে অপরিকল্পিত ফসল রা বেড়ীবাঁধ নির্মাণের কারণে মাছের প্রজনন বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে।

খালিয়াজুরীর মৎস্যজীবি নিখিল বর্মন বলেন, দুই বছর আগেও এই সময় হাওরে জাল টান দিলে ছোট সাইজের রুই, কাতলা, বোয়াল, কালবাউশ, গইন্যা ও আইড় মাছসহ নানা জাতের প্রচুর মাছ পাইতাম। কিন্তু এইবার হাওরে তেমন মাছ পাইতাছিনা।
ভল্লবপুর গ্রামের মৎস্যজীবি কালাচান বলেন, বর্ষাকালে হাওরে বের জাল দিয়া টান দিলে জালে মাছ ভইরা যাইত। কিন্তু এহন হাওরে সারা দিন জাল টানলেও মাছের দেহা পাইনা।

নেত্রকোনা জেলার হাওর উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি স্বাগত সরকার শুভ বলেন, দুর্যোগ যেন হাওরবাসীর পিছু ছাড়ছে না। গত বছর আগাম বন্যায় ফসল তলিয়ে যাওয়ায় উৎপাদিত ধান নষ্ট হয়ে পানি দূষিত হওয়ার পর মাছের মড়ক দেখা দিয়েছিল। এবার হাওরে মা মাছেরা পর্যাপ্ত ডিম ছাড়লেও রহস্যজনক কারণে মাছের পোনা ফোটে নাই। এক সময় এই হাওরে প্রায় ৬০ প্রজাতির দেশীয় মাছ পাওয়া যেত। সঠিক পদক্ষেপের অভাবে ইতোমধ্যে অনেক প্রজাতির মাছ হারিয়ে গেছে।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ রুহুল আমিন বলেন, ফসল উৎপাদনে মাত্রাতিরিক্ত কীটনাশক প্রয়োগ, পলি পড়ে প্রাকৃতিক জলাশয়গুলো ক্রমশ ভরাট হয়ে যাওয়া, পর্যাপ্ত পরিমাণে মাছের অভয়াশ্রম না থাকা, জলমহালগুলোতে বিষ দিয়ে মাছ শিকার ও শুকিয়ে মাছ ধরার প্রবণতাও মাছের উৎপাদনে দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব ফেলেছে। তিনি বলেন, হাওর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তাদেরকে মাছের উৎপাদন বৃদ্ধি কল্পে কি কি করনীয় সে সম্পর্কে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» নেত্রকোনায় সাংবাদিক লিটন ধর গুপ্তের পরলোকগমন

» গৃহকর্মীর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় নেত্রকোনায় ইউপি চেয়ারম্যান আটক

» নেত্রকোনায় কর্মহীন হত-দরিদ্রদের মাঝে জনউদ্যোগের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

» করোনায় দেশে নতুন শনাক্ত ৫৬৪ জন, মৃত্যু আরো ৫ জন

» নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলায় মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি এবং বাংলাদেশ গার্লস গাইড এসোসিয়েশনের উদ‌্যোগ ত্রাণ বিতরণ

» করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৮ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৬৪১

» পড়ার খরচ বাঁচিঁয়ে অসহায়ের পাশে -ছাত্রলীগ নেতা রিফাত

» করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৫ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৪১৮ জন

» গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা নতুন শনাক্ত হয়েছেন আরো ২১৯ জন, আরো ৪ জনের মৃত্যু

» নেত্রকোণা করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ , ৯ জন পুরুষ ৭ জন মহিলা

» নেত্রকোণায় প্রতিপক্ষের হামলায় কলেজ ছাত্র আহত

» খালিয়াজুরীতে সর্দি জ্বর ও শ্বাসকষ্টে এক জনের মৃত্যু: নমুনা সংগ্রহ: বাড়ি লকঢাউন

» নেত্রকোণায় ক্যান্সার,কিডনি রোগী ও হিজড়াদের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ

» নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ভগ্নিপতিকে বাচাঁতে গিয়ে শ্যালক নিহত

» সাংবাদিক আরিফুল ইসলামের উপর হামলাও নির্যাতনের প্রতিবাদে নেত্রকোনায় মানববন্ধন


উপদেষ্টা : শ্যামলেন্দু পাল

সম্পাদক ও প্রকাশক  : মোঃ জহিরুল ইসলাম খান (কবির)

আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বা‌ণি‌জ্যিক কার্যালয় –

সাতপাই(মাষ্টারপাড়া), নেত্র‌কোনা।
ফোন: ০৯৫১৬২৬৮৪

মোবাইল: ০১৭১৭২২৬৮৮৯           

ই‌-মেইল: kabirtvpress@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার নেত্র প্রতিদিন.কম

কারিগরি সহযোগিতায় :- ই-নেট বাংলাদেশ

,

basic-bank

নেত্রকোনার হাওরগুলোতে এ বছর মাছের পর্যাপ্ত ডিম না ফোটায় মৎস্য সংকটের আশঙ্কা

এ কে এম আব্দুল্লাহ :

দেশের অন্যতম মৎস্য ভান্ডার হিসেবে খ্যাত নেত্রকোনার হাওরগুলোতে এ বছর মাছের পর্যাপ্ত ডিম না ফোটায় মৎস্য সংকট দেখা দিতে পারে বলে মৎস্যজীবীরা আশংকা করছে।
মৎস্য বিশেষজ্ঞরা জানান, নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিস্তীর্ণ হাওরগুলো হচ্ছে মিঠা পানির মৎস্য আধার। এই হাওরগুলোতে বছরের ৭ /৮ মাস পানি থাকে।

বৈশাখ মাসের শুরুর দিকে বৃষ্টিপাতে নেত্রকোনার হাওর গুলোতে নতুন পানি আসতে শুরু করে। নতুন পানি আসার সাথে সাথে ১৫ বৈশাখ থেকে ৩০ বৈশাখের মধ্যে রুই, কাতলা, বোয়াল, সিং, মাগুর, কৈ, গইন্যা, আইড়, সরপুটি, কাল বাউশ, চিংড়ি, শৌল, গজারসহ প্রায় ৫০ প্রজাতির দেশীয় মা মাছ হাওরে প্রচুর ডিম ছাড়ে। সেই ডিম থেকে কয়েক দিনের মধ্যেই রেণু পোনা ফোটতে শুরু করে। কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্য মাছের ডিম না ফোটায় আষাঢ় মাস শেষ হতে চললেও এই ভরা বর্ষাতেও মাছের পোণা কিংবা তেমন মাছ চোখে পড়ছে না স্থানীয় জেলেদের। তাই মৎস্যজীবীদের কপালে দুঃশ্চিন্তার ভাজ পড়েছে। তারা হাওরাঞ্চলে মাছ সংকটের আশংকা করছে।

একদিকে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঋতু পরিবর্তন ঘটছে, অন্যদিকে হাওরাঞ্চলের ফসল রায় অপরিকল্পিত বেড়ী বাঁধ নির্মাণ, নদ-নদী, খাল-বিল জলাশয়গুলো দিন দিন ভরাটের ফলে মাছের প্রজনন শূন্যতার দিকে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন মৎস্য বিশেষজ্ঞরা।

খালিয়াজুরী উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মজিবুর রহমান জানান, হাওরে প্রায় ৫০ প্রজাতির দেশীয় মাছ রয়েছে। নতুন পানি আসার সাথে সাথে মা মাছেরা প্রচুর ডিম ছাড়ে। সে সব ডিম থেকে প্রায় ১০ মেট্রিক টন রেণু পোনা উৎপাদিত হয়। বিস্তীর্ণ হাওরাঞ্চলে দৌড়াদৌড়ি করতে পারায় মাছগুলো দ্রুত বড় হয়ে উঠে। প্রতি বছর এখানে প্রায় ১২ হাজার মেঃ টন মাছ উৎপাদিত হয়। এখানকার উৎপাদিত মাছ স্থানীয় চাহিদা পূরণ করেও জাতীয় অর্থনীতিতে প্রায় ৩’শ কোটি টাকার অবদান রাখছে। এ উপজেলায় ৮ হাজার নিবন্ধনকৃত জেলে পরিবার ছাড়াও বর্ষাকালে মৎস্য আহরণ করে অন্তত ১৫ হাজার পরিবার সুখে স্বাচ্ছন্দে দিনাতিপাত করে। তিনি আরো বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব তো রয়েছেই, পাশাপাশি এই খালিয়াজুরী উপজেলার বিভিন্ন হাওরে অপরিকল্পিত ফসল রা বেড়ীবাঁধ নির্মাণের কারণে মাছের প্রজনন বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে।

খালিয়াজুরীর মৎস্যজীবি নিখিল বর্মন বলেন, দুই বছর আগেও এই সময় হাওরে জাল টান দিলে ছোট সাইজের রুই, কাতলা, বোয়াল, কালবাউশ, গইন্যা ও আইড় মাছসহ নানা জাতের প্রচুর মাছ পাইতাম। কিন্তু এইবার হাওরে তেমন মাছ পাইতাছিনা।
ভল্লবপুর গ্রামের মৎস্যজীবি কালাচান বলেন, বর্ষাকালে হাওরে বের জাল দিয়া টান দিলে জালে মাছ ভইরা যাইত। কিন্তু এহন হাওরে সারা দিন জাল টানলেও মাছের দেহা পাইনা।

নেত্রকোনা জেলার হাওর উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি স্বাগত সরকার শুভ বলেন, দুর্যোগ যেন হাওরবাসীর পিছু ছাড়ছে না। গত বছর আগাম বন্যায় ফসল তলিয়ে যাওয়ায় উৎপাদিত ধান নষ্ট হয়ে পানি দূষিত হওয়ার পর মাছের মড়ক দেখা দিয়েছিল। এবার হাওরে মা মাছেরা পর্যাপ্ত ডিম ছাড়লেও রহস্যজনক কারণে মাছের পোনা ফোটে নাই। এক সময় এই হাওরে প্রায় ৬০ প্রজাতির দেশীয় মাছ পাওয়া যেত। সঠিক পদক্ষেপের অভাবে ইতোমধ্যে অনেক প্রজাতির মাছ হারিয়ে গেছে।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ রুহুল আমিন বলেন, ফসল উৎপাদনে মাত্রাতিরিক্ত কীটনাশক প্রয়োগ, পলি পড়ে প্রাকৃতিক জলাশয়গুলো ক্রমশ ভরাট হয়ে যাওয়া, পর্যাপ্ত পরিমাণে মাছের অভয়াশ্রম না থাকা, জলমহালগুলোতে বিষ দিয়ে মাছ শিকার ও শুকিয়ে মাছ ধরার প্রবণতাও মাছের উৎপাদনে দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব ফেলেছে। তিনি বলেন, হাওর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তাদেরকে মাছের উৎপাদন বৃদ্ধি কল্পে কি কি করনীয় সে সম্পর্কে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বা‌ণি‌জ্যিক কার্যালয় –

সাতপাই(মাষ্টারপাড়া), নেত্র‌কোনা।
ফোন: ০৯৫১৬২৬৮৪

মোবাইল: ০১৭১৭২২৬৮৮৯           

ই‌-মেইল: kabirtvpress@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার নেত্র প্রতিদিন.কম

We Policy Social Link
About Us Terms Of Service Facebook
Advertise Privacy Policy Twitter
Contact us Subscription Youtube

কারিগরি সহযোগিতায় :- ই-নেট বাংলাদেশ